০৯:১৩ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১২ জুন ২০২৪, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ময়মনসিংহে সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে মায়ের সংবাদ সম্মেলন

  • সময়ঃ ০৪:২৯:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪
  • ২৮ সময়

মোহাম্মদ সাইফুল আলম, ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি:
আক্তার উল আলম শুভ এর খুনীদের বিচারের দাবীতে মা আম্বিয়া আক্তার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বৃহস্পতিবার(৩০ মে) ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ, ত্রিশাল ও ফুলবাড়িয়ায় শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত,নির্বাচিত হলেন যারা 

তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদর উদ্দেশ্যে লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার একমাত্র ছেলে আক্তার উল আলম শুভ গত ১৩ মে আমার একমাত্র মেয়ের শ্বশুর বাড়ীতে বেড়াতে যায়। আমার মেয়ের জামাতা এনামুর রহমান রবি ফুলবাড়ীয়া উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দীর্ঘদিন যাবৎ দায়িত্ব পালন করে আসছে।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার মেয়ের জামাতা নৌকার প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন করে এবং নৌকার প্রার্থী পরাজিত হয়। উক্ত নির্বাচনের পর থেকে আব্দুল মালেক সরকারের (স্বতন্ত্র এমপি) মদদ পুষ্ঠ জয়নাল গ্রুপের একটি সন্ত্রাসী মহল আমার মেয়ের জামাতাকে খুন করার জন্য ষড়যন্ত্র করে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে ফুলবাড়ীয়াস্থ দেওখোলা বাজার মসজিদ মার্কেটের সামনে জয়নালের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী আমার মেয়ের জামাতা রবি ও তার সঙ্গীয়দের উপর আক্রমণ চালায়।
ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপের তিন দেশ
চক্রটি আমার মেয়ের জামাতা এনামুর রহমান রবির মাথায়, পিঠে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে নৃশংসভাবে কুপিয়ে আহত করে। এ সময় আমার একমাত্র ছেলে দেওখোলা বাজারে আমার মেয়ের জামাতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অবস্থানকালীন সময়ে জানতে পেরে সে ঘটনাস্থলে গেলে জয়নাল গংদের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তার পেটের বাম দিকে পাড় মেরে কিডনি পর্যন্ত কেটে ফেলে। ফলে আমার ছেলে শুভ এর কিডনি এফেক্টেড হয় এবং খাদ্যনালী কেটে যায়। সন্ত্রাসীদের কবল থেকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার অবস্থা আশংকাজনক থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করেন। পরে তাকে ঢাকা আনোয়ার খান মডার্ন কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১১ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পরও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি) হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বিগত ২৭ মে আমার ছেলে শুভ মৃত্যুবরণ করেন।

এ ঘটনায় ফুলবাড়িয়া থানায় মামলা নং ১২ তাং ১৪/৫/২৪ দায়ের করা হয়েছে। সাংবাদিকদের মাধ্যমে একমাত্র ছেলেহারা মা আম্বিয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে দাবি করেন, সন্ত্রাসীরা আমার ছেলেকে খুন করেই ক্ষান্ত হয়নি তারা আমার মেয়ের জামাতা সহ অন্যান্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে। আমি মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ এ ঘটনার সাথে কারা জড়িত এবং কোন শক্তির প্রভাবে এই খুন সংঘটিত হয়েছে তা সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবী করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে নিহত শুভ এর একমাত্র বোন ইসমত আরা সরকার রুচি, নিহতের চাচাতো ভাই মজিবুর রহমান সরকার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি উত্তম চক্রবর্তী রকেট, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল আউয়াল মিন্টুসহ নিহতের পরিবার ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

জনপ্রিয় নিউজ

ময়মনসিংহে সন্তান হত্যার বিচার চেয়ে মায়ের সংবাদ সম্মেলন

সময়ঃ ০৪:২৯:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪

মোহাম্মদ সাইফুল আলম, ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধি:
আক্তার উল আলম শুভ এর খুনীদের বিচারের দাবীতে মা আম্বিয়া আক্তার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বৃহস্পতিবার(৩০ মে) ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ, ত্রিশাল ও ফুলবাড়িয়ায় শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত,নির্বাচিত হলেন যারা 

তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদর উদ্দেশ্যে লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমার একমাত্র ছেলে আক্তার উল আলম শুভ গত ১৩ মে আমার একমাত্র মেয়ের শ্বশুর বাড়ীতে বেড়াতে যায়। আমার মেয়ের জামাতা এনামুর রহমান রবি ফুলবাড়ীয়া উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দীর্ঘদিন যাবৎ দায়িত্ব পালন করে আসছে।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার মেয়ের জামাতা নৌকার প্রতিকের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন করে এবং নৌকার প্রার্থী পরাজিত হয়। উক্ত নির্বাচনের পর থেকে আব্দুল মালেক সরকারের (স্বতন্ত্র এমপি) মদদ পুষ্ঠ জয়নাল গ্রুপের একটি সন্ত্রাসী মহল আমার মেয়ের জামাতাকে খুন করার জন্য ষড়যন্ত্র করে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে ফুলবাড়ীয়াস্থ দেওখোলা বাজার মসজিদ মার্কেটের সামনে জয়নালের নেতৃত্বে ১৫/২০ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী আমার মেয়ের জামাতা রবি ও তার সঙ্গীয়দের উপর আক্রমণ চালায়।
ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপের তিন দেশ
চক্রটি আমার মেয়ের জামাতা এনামুর রহমান রবির মাথায়, পিঠে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে নৃশংসভাবে কুপিয়ে আহত করে। এ সময় আমার একমাত্র ছেলে দেওখোলা বাজারে আমার মেয়ের জামাতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অবস্থানকালীন সময়ে জানতে পেরে সে ঘটনাস্থলে গেলে জয়নাল গংদের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা তার পেটের বাম দিকে পাড় মেরে কিডনি পর্যন্ত কেটে ফেলে। ফলে আমার ছেলে শুভ এর কিডনি এফেক্টেড হয় এবং খাদ্যনালী কেটে যায়। সন্ত্রাসীদের কবল থেকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার অবস্থা আশংকাজনক থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করেন। পরে তাকে ঢাকা আনোয়ার খান মডার্ন কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১১ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পরও অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি) হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় বিগত ২৭ মে আমার ছেলে শুভ মৃত্যুবরণ করেন।

এ ঘটনায় ফুলবাড়িয়া থানায় মামলা নং ১২ তাং ১৪/৫/২৪ দায়ের করা হয়েছে। সাংবাদিকদের মাধ্যমে একমাত্র ছেলেহারা মা আম্বিয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে দাবি করেন, সন্ত্রাসীরা আমার ছেলেকে খুন করেই ক্ষান্ত হয়নি তারা আমার মেয়ের জামাতা সহ অন্যান্যের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে। আমি মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ এ ঘটনার সাথে কারা জড়িত এবং কোন শক্তির প্রভাবে এই খুন সংঘটিত হয়েছে তা সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনার দাবী করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে নিহত শুভ এর একমাত্র বোন ইসমত আরা সরকার রুচি, নিহতের চাচাতো ভাই মজিবুর রহমান সরকার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি উত্তম চক্রবর্তী রকেট, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল আউয়াল মিন্টুসহ নিহতের পরিবার ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।